শিমুল মাহমুদ: [২] গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নেতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী আগের চেয়ে কিছুটা ভালো। সকালে ফ্রেশ হয়ে নাশতা খেয়েছেন। স্টাফদের সঙ্গে কথা বলছেন। নিজে ঔষধ খেয়েছেন।

সবমিলিয়ে গতকালে তুলনায় আজ কিছুটা ইমপ্রুভ হয়েছে। তবে এখনও অক্সিজেন লাগিয়ে রাখা হয়েছে। অক্সিজেনের পরিমাণ আগের তুলনায় কম লাগছে।

শনিবার (৬ জুন) সকালে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. ফরহাদ আমাদের সময় ডটকমকে এসব ত’থ্য জানান।

[৩] কোভিড-১৯ আ’ক্রান্ত হয়ে ৭৯ বছর বয়স্ক এই চিকিৎসক গণস্বাস্থ্য নগর হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন। মো. ফরহাদ বলেন, রাতে ডায়লাইসিস হয়েছ, প্লাজমা নিয়েছেন।

বর্তমানে তাকে সম্পূর্ণরূপে অক্সিজেন দিয়ে রাখা হয়েছে। গতরাতের তুলনায় এখন তার অবস্থা কিছুটা ভালো। তবে, স্থিতিশীল নয়। তিনি সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন।

[৬] একে তো কিডনি ফেইলর রো’গী, ডায়ালাইসিসে আছেন এর মধ্যে আবার কোভিড-১৯ তে আ’ক্রান্ত। আমরা চিকিৎসকরা যা করার করছি এখন পুরোটায় নির্ভর করছে আল্লাহ তালাহর উপর।

[৭] এর আগে দুপুর ২টার দিকে গণস্বাস্থ্য নগর হাসপাতালের সহকারী রেজিস্ট্রার ডা. তানভীর চৌধুরী বলেন, ৬-৭ লিটার অক্সিজেন লাগছে। শ্বাসক’ষ্ট আছে। দুটি ফুসফুসই আ’ক্রান্ত হয়েছে। আজকে তার বুকের এক্স-রে রিপোর্টও ভালো আসেনি।

[৮] তিনি বলেন, ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর কিডনি চিকিৎসার অংশ হিসেবে নিয়মিত ডায়ালাইসিস করাতে হয় গতকাল যখন তার কিডনি ডায়ালাইসিস শুরু হয়, সে সময় শা’রীরিক অবস্থার কারণে ডায়ালাইসিস সম্পন্ন করা যায়নি। বর্তমানে তিনি চিকিৎসকদের পর্যবেক্ষণে আছেন।

[৯] গত ২৫ মে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর শ’রীরে ক’রোনাভা’ইরাসে শনাক্ত শনাক্ত হওয়ার পরেই তার স্ত্রী শিরীন হক ও ছেলে বারিশ চৌধুরীরও ক’রোনাভা’ইরাসে শনাক্ত হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here