মা’র্কিন নির্বাচনে হেরে এমনিতেই মন ভালো নেই ডোনাল্ড ট্রা’ম্পের। এরই মধ্যে শোনা গেল তার বৈবাহিক জীবন নিয়ে চ’রম হতাশাজনক এক খবর। ব্রিটিশ গণমাধ্যম ডেইলি মেইল জানাচ্ছে, ট্রা’ম্পকে তালাক দেওয়ার জন্য অধীর আ’গ্রহে দিন গুনছেন মেলানিয়া।

এর আগে ২০১৬ সালে ট্রা’ম্পের নির্বাচনে বিজয়ী হওয়ার খবরে কা’ন্নায় ভে’ঙে পড়েছিলেন মেলানিয়া ট্রা’ম্প। এমন একটা কথা সে সময় বেশ জো’রেশোরেই শোনা গেছে।

ট্রা’ম্প নির্বাচনে জিততে পারেন- এটা ছিল মেলানিয়ার কাছে অভাবনীয়। অন্যদিকে ট্রা’ম্পের হেরে যাওয়ার পর এখনও মুখ খোলেননি মা’র্কিন ফার্স্টলেডি মেলানিয়া ট্রা’ম্প।

এদিকে কোনো কোনো খবরে দাবি করা হয়েছে- হোয়াইট হাউস থেকে বের হয়ে যাওয়ার জন্য প্রতিটি মুহূর্ত অপেক্ষা করছেন মেলানিয়া। তারপরই ট্রা’ম্পকে দেবেন তালাক।

তিনি বলেন, ‘ট্রা’ম্প দম্পতির ১৫ বছরের বৈবাহিক জীবন কার্যত শেষ হয়ে গেছে।’ মেলানিয়া ট্রা’ম্পের এক আইনি পরামর্শদাতা জানিয়েছেন যদি ডোনাল্ড ও মেলানিয়ার ডিভোর্স বাস্তবায়িত হয়,

তবে স্ত্রী’কে মো’টা অঙ্কের খোরপোষ দিতে হবে ট্রা’ম্পকে। অঙ্কটা ৬৮ মিলিয়ন মা’র্কিন ডলারের, যা বাংলাদেশি টাকায় প্রায় পৌন ছয়শ’ কোটি টাকার সমান। খবর কলকাতা টোয়েন্টিফোরের।

১৫ বছর আগে বৈবাহিক সম্প’র্কের শুরু হয়েছিল ডোনাল্ড ট্রা’ম্প ও মেলানিয়ার। তবে বেশ কয়েক বছর ধরেই এই সম্প’র্কটা শুধু চুক্তির ছিল বলে জানিয়েছেন ঘনিষ্ঠরা। হোয়াইট হাউস ছাড়ার পরেই ট্রা’ম্প ও মেলানিয়ার ডিভোর্স হবে, এই খবর ইতিমধ্যেই প্রকাশিত। আইনি পরামর্শদাতা জানাচ্ছেন, যে জীবনযাত্রায় মেলানিয়া অভ্যস্ত, সেখানে এই টাকার অঙ্ক দিতে হবে ডোনাল্ড ট্রা’ম্পকে।

উল্লেখ্য, ট্রা’ম্পের আগের দুটি বৈবাহিক সম্প’র্কেও খোরপোষ দিতে হয় তাকে। ট্রা’ম্পের দ্বিতীয় স্ত্রী মার্লা ম্যাপেলস ২ মিলিয়ন মা’র্কিন ডলার খোরপোষ পেয়েছিলেন। ট্রা’ম্পের প্রথম স্ত্রী ইভানা ট্রা’ম্প পেয়েছিলেন ১৪ মিলিয়ন মা’র্কিন ডলার, স’ঙ্গে কানেকটিকাটে একটি প্রাসাদপম বাড়ি, নিউইয়র্কে একটি অ্যাপার্টমেন্ট, বছরে একবার করে ফ্লোরিডার বিলাসবহুল ম্যের এ ল্যাগো রিসোর্টে ভ্রমণের সুযোগ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here