সাভারে স্ত্রীর অ’ধিকার দাবিতে শ্বশুরবাড়িতে অ’নশন করছেন শান্তা ই’সলাম নামে এক নবব’ধূ। গত ২ দিন ধ’রে ওই বাড়িতে অ’নশন করছেন যশোরের ঝিকরগাছার কৃষ্ণনগরের খলিফা পাড়ার মে’য়ে শান্তা ই’সলাম।

জানা গেছে, ফেসবুকে পরিচয়ের সূত্র ধ’রে শান্তার বিয়ে হয় সাভার পৌর এলাকার গেন্ডা স’চিব রোডের নজরুল ই’সলামের ছেলে সাগরের স’ঙ্গে। কিন্তু দুই মাসের মাথায় শান্তাকে মা’রধ’র করে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেয়ার চে’ষ্টা করে স্বা’মী ও শ্বশুর-শাশুড়ি।

এ ঘ’টনায় শান্তা সাভার মডেল থানায় অভিযোগ করতে গেলে খবর পেয়ে তার শ্বশুর, শাশুড়ি ও স্বা’মী বাড়িতে তালা দিয়ে পা’লিয়ে যান। শান্তা ই’সলাম জানান, ফেসবুকের সূত্র ধ’রে পরিচয়ের কিছুদিনের মধ্যে তাদের প্রেমের সম্প’র্ক গড়ে ওঠে।

প্রে’মিক সাগর বেশ কয়েকবার ঝিকরগাছায় শান্তাদের বাড়িতে বেড়াতে যান। তাদের বেশ কয়েকটি দূর পাল্লার বাস ও দোতলা বাড়িসহ সম্পদ আছে বলে জানান সাগর। সরল মনে শান্তাও তা বিশ্বাস করেন।

শা’ন্তা দাবি করেন, বাবার বাড়ি থেকে চলে আসার সময় নগদ দুই লাখ টাকা ও প্রায় ৩ লাখ টাকার স্বর্ণালংকারসহ মূ’ল্যবান সামগ্রী নিয়ে এসেছিলেন। সেই টাকাও সাগর ও তার বাবা নিয়ে তাদের বাড়ি ছেড়ে চলে গেছেন।

শান্তার ধারণা, তার শ্বশুর সাগরকে কোথাও সরিয়ে আ’টকে রেখেছে। সর্বশে’ষ ৩ দিন আগে সাগর তাকে এসএমএস করে জানিয়েছিল তার বাবা তাকে আ’টকে রেখেছিল। এ বি’ষয়ে সাগর ও তার বাবা নজরুল ই’সলামের মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চে’ষ্টা করলেও তাদের স’ঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

অ’নশনরত শান্তা তার দা’বির বি’ষয়টি সাভার উপজে’লা নির্বাহী কর্মক’র্তাকে জানালে তিনি তাকে পু’লিশ পাঠানোর আশ্বাস দেন এবং পু’লিশ পাঠিয়ে তার খোঁ’জ খবর নেন। এ বি’ষয়ে সাভার মডেল থা’নায় একটি সাধারণ ডায়রি করা হয়েছে এবং মে’য়েটিকে আ’দালতে যাওয়ার পরাম’র্শ দেয়া হয়েছে বলে জানান থা’নার ভারপ্রা’প্ত কর্মক’র্তা এএফএম সায়েদ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here